খাগড়াছড়ি, , সোমবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৮

লামার ‘গজালিয়া-আজিজনগর’ সড়কের কাজে ব্যাপক অনিয়ম; বালির পরিবর্তে ব্যবহার হচ্ছে পাহাড়ের মাটি

প্রকাশ: ২০১৭-০২-১৫ ১৮:১৭:৩৬ || আপডেট: ২০১৭-০২-১৫ ১৮:১৭:৩৬

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধিঃ সড়ক ও জনপদ বিভাগের বাস্তবায়নে বান্দরবানের লামার গজালিয়া-আজিজনগর সড়কের কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও যেনতেন ভাবে কাজ করে সরকারী টাকা হরিলুটের মহোৎসব চলছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় জনগণ। অপরদিকে কাজের মান ও প্রকল্পের যাবতীয় ব্যয় নিয়ে জানতে চাইলে সাংবাদিকদের তথ্য দিতে অপারগতা দেখায় সড়ক ও জনপদ বিভাগের বান্দরবান জেলা ও লামা উপজেলার কর্মকর্তারা।
জানা গেছে, বান্দরবান সড়ক ও জনপদ বিভাগ প্রায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে উক্ত প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। এই প্রকল্পের অধিনে গজালিয়া-আজিজনগর ১৮ কিলোমিটার সড়কের ৮ কিলোমিটার নতুন সড়ক, ২ কিলোমিটার পুরাতন সড়ক মেরামত ও উজানিপাড়াস্থ ১টি বড় ব্রিজ সহ আরো কয়েকটি ছোট ছোট কার্লভাট রয়েছে। স্থানীয় জনগণ জানায়, বান্দরবানের সরকার দলীয় নেতারা সিন্ডিকেট করে এই কাজটি করছে। প্রভাবশালী লোকজন কাজটি করাই স্থানীয় কেউ ভয়ে প্রকল্পের কাজের অনিয়ম নিয়ে কথা বলতে পারছেনা। এমনকি খোদ সড়ক ও জনপদ বিভাগের লোকজন প্রকাশ্যে কাজের অনিয়ম দেখে কথা বলছেনা। প্রকল্পে সুবিধাভোগী অনেকে নাম প্রকাশ না করা সত্ত্বে জানায় সড়ক ও জনপদ বিভাগের কর্মকর্তাদের যোগসাজসে এই অনিয়ম চলছে।
স্থানীয়রা জানায়, রাস্তার কাজে বালির পরিবর্তে ব্যবহার পাহাড়ে মাটি। মানসম্মত পাথর ব্যবহার না করে প্রকল্প এলাকার আশপাশ ঝিরি থেকে মাটি পাথর সংগ্রহ করে তা ব্যবহার হচ্ছে রাস্তার কাজে। আজিজনগর অংশে কাজ শেষ না হতেই কার্পেটিং উঠে যাওয়ার ঘটনায় ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী। নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার করার কারণে কার্পেটিংয়ের এ অবস্থা বলে জানায় প্রত্যক্ষদর্শীরা। কার্পেটিং কাজে ইরানী বিটুমিনের পরিবর্তে বাংলা বিটুমিন ব্যবহার করা হয়েছে। তাছাড়া বিভিন্ন নিম্নমানের উপকরণ ব্যবহার করায় মানসম্মত উন্নয়ন কাজ হয়নি। সরজমিনে রাস্তার কাজ দেখতে গিয়ে জনগণের অভিযোগ গুলো সত্যতা মিলেছে।
একই প্রকল্পে উজানিপাড়াস্থ প্রায় ৩ কোটি ২০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত ব্রিজের কাজেও সরকারী প্রকৌশলীদের সহায়তা ও তাদের উপস্থিতিতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে।
আজিজনগর ইউপি চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন বলেন, উন্নয়ন কাজে আমার কোন সম্পৃক্ততা নেই। এই ব্যাপারে আমি কিছু জানিনা।
গজালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান বাথোয়াইচিং মার্মা বলেন, আমার ইউনিয়নের অংশের কাজ এখনো শুরু হয়নি এবং প্রকল্প এলাকায় আমার যাওয়ার সুযোগ হয়নি।
কাজের অনিয়মের বিষয়ে জানতে চাইলে সড়ক ও জনপদ বিভাগ বান্দরবানের উপ-প্রকৌশলী নাজমুল ইসলাম খান মুঠোফোনে বলেন, বিস্তারিত তথ্য দেয়া যাবেনা। কাজে কোন অনিয়ম হচ্ছেনা। আর বেশী জানতে হলে বান্দরবানে আসেন।

Leave a Reply

আরকাইভস

April 2018
M T W T F S S
« Mar    
 1
2345678
9101112131415
16171819202122
23242526272829
30  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় ১ম পাতা

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন

error: Content is protected !!