খাগড়াছড়ি, , বুধবার, ১৬ জুন ২০২১

নেক আমলের অভ্যাস গড়ে তোলার সর্বোৎকৃষ্ট সুযোগ পবিত্র মাহে রমজানে- মাওলানা মোঃ আমিনুল

প্রকাশ: ২০২১-০৫-১০ ২৩:৩৫:২৭ || আপডেট: ২০২১-০৫-১০ ২৩:৩৫:৩৪

ওমর ফারুক সুমন- মুনিরীয়া যুব তবলীগের ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভায় আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ আমিনুল হক মুনিরী ছাহেব এই উক্তি করেন মাহে রমজান সকলের জন্য অনেক বড় নেয়ামত। দুনিয়াবাসীর জন্য নেক আমল সমৃদ্ধির বিরাট সুযোগ; পাশাপাশি কবরবাসীর আযাব বন্ধ থাকে এই মহামূল্যবান রমজানুল মোবারকে।কাগতিয়া তরিক্বতে ফরজ-ওয়াজিব-সুন্নাহ এর পাশাপাশি নফল ইবাদত যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ; কেননা এই তরিক্বতের উপর আমলকারীদের বাধ্যতামূলকভাবে নবী প্রেমে উদ্ধুদ্ধ হয়ে প্রতিদিন ১১১১ বার দরুদ শরীফ আদায় করতে হয়। এছাড়াও নিয়মিত তাহাজ্জুদ, মোরাকাবা, জিকিরে জলী, ছালাতুল তওবা, ছালাতুল শোকর, ছালাতুল হাজ্বত, ইস্তেগফার, আয়াতে শেফা, তাহলীল, দোয়া ইউনুস ইত্যাদি নফল আমল সমূহ বিশেষ গুরুত্ব সহকারে প্রতিনিয়ত আদায় করতে হয়; যা নিঃসন্দেহে নেক আমলকে সমৃদ্ধ করে।

অরাজনৈতিক তরিক্বতভিত্তিক আধ্যাত্মিক সংগঠন মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি বাংলাদেশ ১৪৩ নং মারিশ্যা (বাঘাইছড়ি, রাঙ্গামাটি) শাখার উদ্যোগে পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে ২৭শে রমজান (১০মে) সোমবার কাগতিয়া আলীয়া গাউছুল আজম দরবার শরীফ কমপ্লেক্স (মারিশ্যা) এর স্হায়ী কার্যালয়ে আয়োজিত ইফতার মাহফিল ও আলোচনা সভা”তে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন মডেল টাউন জামে মসজিদের সম্মানিত খতিব ও সংগঠনের নবনিযুক্ত সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা মুহাম্মদ আমিনুল হক মুনিরী ছাহেব।

রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলা প্রেসক্লাব এর যুগ্ম সম্পাদক, দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি ও উপজেলা সদর ব্যাবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আব্দুল মাবুদ এর সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক ছিলেন ইন্জিনিয়ার মুহাম্মদ আয়াতুল্লাহ রুহুল খোমেনি (শামীম)।\

সভাপতির বক্তব্যে বাঘাইছড়ি প্রেসক্লাব এর যুগ্ম সম্পাদক, দৈনিক সমকাল প্রতিনিধি ও উপজেলা সদর ব্যাবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আব্দুল মাবুদ বলেন, শরীয়ত ও তরিক্বত একে অপরের পরিপূরক; তাই শরীয়তকে বাদ দিয়ে তরিক্বতের পূর্ণাঙ্গতা  হয় না।শরীয়তকে অবজ্ঞা করে তরিক্বতের নামে অশ্লীল-বেহায়াপনা কার্যক্রম, গরু-ছাগলের রমরমা ব্যাবসা, পর্দা লঙ্ঘন করে নারী-পুরুষের অবাধ মেলামেশা, ওরশের নামে চাঁদাবাজি ইত্যাদি শরীয়তবিরোধী কার্যকলাপ পরিহার করে সঠিকভাবে ইসলামে ফিরে আসা একান্ত জরুরী।

এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আলহাজ্ব মুহাম্মদ আজিজুর রহমান, মুহাম্মদ ফজলুল হক, মুহাম্মদ সিরাজুল হক, মুহাম্মদ মাহমুদুর রহমান মাষ্টার, মুহাম্মদ সাইফুল ইসলাম, মুহাম্মদ আলী আজম, মুহাম্মদ তসলীম উদ্দিন প্রমুখ।

মিলাদ-কিয়াম শেষে দেশ জাতির উন্নতি-অগ্রগতি, পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরত সকল সম্প্রদায়ের মধ্যে সম্প্রীতি-শান্তি-শৃংখলা-দেশপ্রেম এবং তরিক্বতের রাহবার হযরত শায়খ ছৈয়্যদ মোর্শেদে আজম মাদ্দাজিল্লুহুল আলী ছাহেবের হায়াতে খিজরী ও সুস্হতা কামনা করে বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের মাওলানা মুহাম্মদ আতিকুর রহমান ছাহেব।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.