খাগড়াছড়ি, , শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯

বিশ্বব্যাপী জলবায়ু সম্মেলন কপ-২২; খাগড়াছড়িতে টিআইবির মানববন্ধন

প্রকাশ: ২০১৬-১১-১৪ ১৪:২৮:০৪ || আপডেট: ২০১৬-১১-১৪ ১৪:২৮:০৪

টিআইবিনিজস্ব প্রতিবেদক:  বিশ্বব্যাপী জলবায়ু সম্মেলন কপ-২২ মারাকেশ উপলক্ষে জনমত সৃষ্ঠির লক্ষে, জলবায়ু অর্থায়নে উন্নত দেশের প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ন, সবুজ জলবায়ু তহবিল হতে তহবিল সংগ্রহ এবং তা ব্যবহারে স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা এবং নাগরিক অংশগ্রহণ নিশ্চিতের দাবীতে “জলবায়ু অভিযোজনে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ঋণ নয়, চাই ক্ষতিপুরন” এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র সহযোগিতায় সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), স্বজন, ইয়েস ও ইয়েস ফ্রেন্ডস খাগড়াছড়ি’র উদ্যোগে বিভিন্ন এনজিও, সামাজিক সংগঠন, ছাত্র-ছাত্রী ও সাধারণ জণগোষ্ঠীর অংশগ্রহণে অদ্য সোমবার সকালে  খাগড়াছড়িস্থ শাপলা চত্ত্বর প্রাঙ্গনে মানববন্ধন করেছে টিআইবি।

মানববন্ধনে বক্তাগণ জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব ও এর কারণ সম্পর্কে আলোচনা করেন এবং জলবায়ু সুরক্ষায় সকলকে আরো বেশি সচেতন হওয়ার আহ্বান জানান।

এছাড়া, বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলায় শিল্পোন্নত ও উদীয়মান অর্থনীতির দেশসমূহ প্রাক-শিল্পায়ন সময়ের তুলনায় বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধির গড় হার সর্বোচ্চ ২ ডিগ্রী সেলসিয়াসে সীমাবদ্ধ রাখতে আইনী বাধ্যতামূলক চুক্তি বাস্তবায়ন করা; প্যারিস চুক্তিতে আইনী বাধ্যতার আওতায় ‘দুষণকারী কর্তৃক ক্ষতিপূরণ’ নীতি মেনে কোনো অবস্থাতেই ঋণ নয়, উন্নয়ন সহায়তার “অতিরিক্ত” ও “নতুন” শুধুমাত্র অনুদানকে স্বীকৃতি দিয়ে জলবায়ু অর্থায়নের সর্বসম্মত সংজ্ঞা নির্ধারণ করা; শিল্পোন্নত দেশসমূহ কর্তৃক ২০১৬ হতে ২০৩০ পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত দেশসমূহকে দীর্ঘমেয়াদে যথার্থ এবং চাহিদা ভিত্তিক অর্থায়নের পথনকশা (রোডম্যাপ) প্রণয়ন করা; টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিতে দারিদ্র বিমোচনে প্রয়োজনীয় উন্নয়ন তহবিলের বরাদ্দ অব্যাহত রাখা এবং প্রতিশ্রুত জলবায়ু তহবিল প্রদানের সুস্পষ্ট অঙ্গীকার প্রদানের দাবী জানানো হয়।
জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে জলবায়ু তহবিলের স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে নিম্নোক্ত দাবী সমুহ উত্তাপন করা হয়ঃ
(ক) জাতীয়
১.    প্যারিস চুক্তি বাস্তবায়নের ভবিষ্যৎ কর্মকৌশল নির্ধারণে বাংলাদেশের অবস্থান নির্ধারণের লক্ষে সুশীল সমাজ, বিশেষজ্ঞসহ সংশ্লিষ্ট সকল পক্ষকে অন্তর্ভুক্ত করে জাতীয় পর্যায়ে আলোচনার আয়োজন
২.    এলাকা-ভিত্তিক জলবায়ু পরিবর্তনের বিজ্ঞান ভিত্তিক প্রভাব যাচাই এবং প্রাপ্ত বিজ্ঞান-ভিত্তিক তথ্যের ভিত্তিতে চাহিদা ভিত্তিক (দীর্ঘ  এবং স্বল্প মেয়াদী)সরকারি উৎস হতে শুধুমাত্র অনুদানকে অগ্রাধিকার দিয়ে২০৩০ পর্যন্ত অর্থায়নের রোডম্যাপ প্রণয়ন
৩.    জিসিএফ হতে সরাসরি তহবিল সংগ্রহের সম্ভাব্য জাতীয় বাস্তবায়নকারী প্রতিষ্ঠান (এনআইই) কে জিসিএফ নির্ধারিত মানদন্ড অর্জনে নি¤েœর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে-
    জিসিএফ’র জাতীয় নির্ধারিত কর্তৃপক্ষ (এনডিএ) হিসেবে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগে শুধুমাত্র জিসিএফ সংক্রান্ত কার্যক্রমের জন্য নির্দিষ্ট বিভাগ প্রতিষ্ঠা
    একটি নির্দিষ্ট প্রিতিষ্ঠান পরিচালনায় পূর্ণাঙ্গ স্বায়ত্তশাসন নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় সংস্কার
    পরিবেশ এবং সামাজিক ব্যবস্থাপনা নীতি প্রণয়ন এবং ক্ষেত্রবিশেষে সংস্কার
    প্রতিষ্ঠানে কর্মরত স্টাফদের জবাবদিহিতা নিশ্চিতে তাদের দায়িত্ব এবং ভূমিকা সুস্পষ্ট করা
    বৈশ্বিক আর্থিক মানদন্ড অর্জনে নিরীক্ষা (অভ্যন্তরীন এবং বাহ্যিক), তদারকি এবং মূল্যায়নে নিরপেক্ষতা নিশ্চিত করা
    প্রাতিষ্ঠানিক স্বচ্ছ হিসাব সংরক্ষণ পদ্ধতি নিশ্চিতে বৈশ্বিকভাবে স্বীকৃত অ্যাকাউন্টিং সফটওয়ার ব্যবহার
    আইএমইডি’র উদ্যোগে এমন একটি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে যার মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠী প্রকল্প প্রণয়ন, বাস্তবায়ন তদারকি এবং কার্যকরভাবে সহজে অভিযোগ প্রদান এবং তার সুরাহার সুযোগ পেতে পারে
    আইএমইডি’র উদ্যোগে এমন একটি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে যার মাধ্যমে ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠী প্রকল্প প্রণয়ন, বাস্তবায়ন তদারকি এবং কার্যকরভাবে সহজে অভিযোগ প্রদান এবং তার সুরাহার সুযোগ সৃষ্টি করা
৪.    জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় পরিকল্পিত কার্যক্রম নির্বিঘেœ বাস্তবায়নে বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড (বিসিসিটিএফ) এবং বাংলাদেশ জলবায়ু পরিবর্তন রেজিলিয়েন্স ফান্ড (বিসিসিআরএফ) পরিচালনায় প্রয়োজনীয় তহবিল বরাদ্দ অব্যাহত রাখতে হবে;
৫.    জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলা সংক্রান্ত সকল কার্যক্রমে ক্ষতিগ্রস্ত ও ঝুঁকিপূর্ণ জনগোষ্ঠী বিশেষ করে নারী, প্রান্তিক জনগোষ্ঠী এবং আদিবাসীদের ব্যাপক ও কার্যকর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে এবং এ লক্ষ্যে সকল অংশীজনকে সম্পৃক্ত করে জাতীয়ভাবে একটি সমন্বিত কর্তৃপক্ষ প্রতিষ্ঠা করতে হবে;
৬.    জলবায়ু তহবিলের স্বচ্ছতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিতে জলবায়ু তহবিল এর আওতায় যে কার্যক্রম চলছে তার সকল প্রকার আর্থিক লেনদেনের প্রতিবেদন স্বতঃপ্রণোদিতভাবে প্রকাশ করতে হবে;
৭.    জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বাস্তবায়িত সকল প্রকল্পের ক্ষেত্রে তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ এর পুর্ণাঙ্গ বাস্তবায়ন করতে হবে;
৮.    জলবায়ু অর্থায়নে প্রকল্প বাস্তবায়নে সকল প্রকার অস্বচ্ছতা, অব্যবস্থাপনা ও অনিয়ম-দুর্নীতি প্রতিরোধ-মূলক ব্যবস্থা সুপ্রতিষ্ঠিত ও কার্যকর করতে হবে; কোনো প্রকার অনিয়ম সংগঠিত হলে যথাযথ প্রক্রিয়ায় জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।
(খ) স্থানীয়
৯.    প্রকল্প গ্রহণ এবং বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে নাগরিক সমাজের সাথে সমন্বিতভাবে সামাজিক জবাবদিহিতা সংক্রান্ত টুলস (যেমন, গণশুনানি, সিটিজেন চার্টার প্রণয়ন, সামাজিক অডিট ইত্যাদি) প্রয়োগ করতে হবে; এবং
১০.    স্থানীয় পর্যায়ে (বিশেষত ইউনিয়ন পর্যায়ে) যেকোন প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রতিটি পর্যায়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিবৃন্দকে (ওয়ার্ড কমিশনার/ইউনিয়ন পরিষদ) সম্পৃক্ত রাখতে হবে এবং প্রকল্প সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য জনগণ পৌরসভা/ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় থেকে পেতে পারে তার ব্যবস্থা করতে হবে।

সনাক সহ-সভাপতি মোঃ জহুরুল আলম মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন। টিআইবি’র এরিয়া ম্যানেজার মোহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, নমিতা চাকমা, সাধারন সম্পাদক, ক্লাইমেট জাস্টিস নেটওয়ার্ক। মানববন্ধনে টিআইবির অবস্থানপত্র পাঠ করেন ইয়েস দলনেতা উৎপল ত্রিপুরা ও সহ দলনেতা জেকি চাকমা।

উল্লেখ্য গত  ০৭ নভেম্বর হতে ১৮ নভেম্বর ২০১৬খ্রি. পর্যন্ত জাতিসংঘ ফ্রেমওয়ার্ক কনভেনশন অন ক্লাইমেট চেঞ্জ (ইউএনএফসিসিসি) কর্তৃক মরক্কোর মারাকেশে ২২ তম জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলন-২০১৬ অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

January 2019
M T W T F S S
« Dec    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় প্রথম পাতা

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন