খাগড়াছড়ি, , শনিবার, ২০ অক্টোবর ২০১৮

গুইমারা উপজেলার প্রথম নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

প্রকাশ: ২০১৭-০২-২২ ১৭:১৭:৫৩ || আপডেট: ২০১৭-০২-২২ ১৭:২১:০৫

গুইমারা প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ি জেলার নব-সৃষ্ট গুইমারা উপজেলা পরিষদের নির্বাচনকে ঘিরে জমে ওঠেছে প্রচার প্রচারণা। গুইমারা উপজেলার প্রথম নির্বাচনে জয়ের স্বাধ পেতে মরিয়া চেয়ারম্যান-ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদের ৯ প্রার্থী। প্রতিদ্বন্ধিতার মাঠে দলীয় নেতা-কর্মী এবং জনগণের সমর্থন আদায়ে ভোটারদের দুয়ারে দুয়ারে ছুটছেন প্রার্থীরা। ঝাঁপিয়ে পড়ছেন সাধারণ মানুষের মন জয়ের লক্ষ্যে। অনেকেই প্রচার মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক’কে। প্রচার প্রচারণায় সরগরম হয়ে উঠেছে গুইমারা উপজেলার ৩টি ইউনিয়নের পাহাড়ের অলি-গলি মেঠপথসহ সর্বত্র। গুইমারা থানা থেকে উপজেলায় রুপান্তর হওয়ার পর এবারই প্রথম গুইমারা উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ফলে বাড়তি  উৎসাহ যোগ হয়ে ভোটারদের মধ্যে উৎসবের জোয়ার বইছে। চায়ের দোকান থেকে শুরু করে মাঠে ময়দানে এখন নির্বাচনের আমেজ। পোষ্টারে-পোষ্টারে ছেয়ে গেছে নির্বাচনী এলাকার গুরুত্বপূর্ণ স্থান, দোকান-পাটসহ ভোটারদের বাড়ি-বাড়ি। ভোটাররাও উপভোগ করছেন সম্ভাব্য প্রার্থীদের পদচারণা।

গুইমারা উপজেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচনে দুই প্রভাবশালী রাজনৈতিক দলের সমর্থন নিয়ে চেয়ারম্যান পদে লড়ছেন দুই তরুন নেতা গুইমারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বাবু মেমং মারমা ও গুইমারা উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো: ইউসুফ। এ দু’নেতার মধ্যে রাজনৈতিক মতাদর্শে ভিন্নতা থাকলেও রাজনীতির মাঠে তারা দুজনই ক্লিন ইমেজের নেতা হিসেবে পরিচিত। দলের ভিতরে বাহিরে ব্যাপক গ্রহণ যোগ্যতা আর ক্লিন ইমেজকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে তৎপর এই তরুন দুই নেতা।

ভোটের মাঠে জয়ের লক্ষ্যে রাত দিন প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মেমং মারমা ও বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মো. ইউসুফ। বসে নেই আওয়ামীলীগ ও বিএনপির নেতা-কর্মীরাও। দলীয় প্রার্থীর বিজয় ছিনিয়ে আনতে তারা কাজ করে যাচ্ছেন সমান তালে।

অন্যদিকে ক্লিন ইমজের মেমং-ইউসুফকে টেক্কা দিয়ে গুইমারা উপজেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচনে জয় পেতে মরিয়া ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) সমর্থিত প্রার্থী হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের সদ্য বিদায়ী  চেয়ারম্যান উশেপ্রু মারমা। গেল হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে পরাজয়ের প্রতিশোধ নিতে অনেকটা আটঘাট বেঁধে মাঠে নেমেছেন তিনি। গুইমারা উপজেলার দুই তৃতীয়াংশ উপজাতীয় ভোটারকে টার্গেট করে বিজয়ের স্বপ্ন দেখছেন ইউপিডিএফ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী উশেপ্রু মারমা। গুইমারা উপজেলার কয়েকজন ভোটারের সাথে কথা বলে জানা যায়, গুইমারা উপজেলা নির্বাচনে ক্লিন ইমজের নেতা খ্যাত মেমং-ইউসুফের বাইরে বিকল্প ভাবতে চাননা তারা।

জয়ের ব্যাপারে শতভাগ আশাবাদী আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী মেমং মারমা। তিনি বলেন, বিগত দিনের উন্নয়ন আর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ধারা অব্যাহত রাখতেই নৌকার পক্ষে রায় দিবে জনগণ।

অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মো: ইউসুফ রায়ের ভার জনগণের উপর ছেড়ে দিয়ে বলেন, দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা এখন জনদাবিতে পরিণত হয়েছে। জনদাবির সমর্থন থেকেই জনগণের শাসন প্রতিষ্ঠায় ভোটাররা ধানের শীষে ভোট দিবে। অবাধ,সুষ্ঠ নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীরা বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

এদিকে নিজের জয়ের ব্যাপারেও শতভাগ আশাবাদী ইউপিডিএফ সমর্থিত চেয়ারম্যান প্রার্থী উশেপ্রু মারমা বলেন, গুইমারার সাধারণ জনগণ বিকল্প খুঁজছে। অতীত থেকে শিক্ষা নিয়ে জনগণই তাদের যোগ্য নেতৃত্ব নির্বাচিত করবেন। নেতৃত্ব নির্বাচনে ভোটাররা ভুল করবেনা বলেও মনে করেন তিনি।

নির্বাচনি মাঠে প্রার্থীরা নিজ নিজ অবস্থানে ভোটারদের মন জয়ের চেষ্টা করলেও গুইমারা উপজেলার সচেতন মহলের দাবী যে যাই বলুক, বিগত দিনের কর্মকান্ড বিবেচনায় গুইমারা উপজেলা নির্বাচনে যোগ্য প্রার্থীদেরই নির্বাচিত করবেন তারা। মোট ভোটারের দুই তৃতীয়াংশই উপজাতীয় ভোটার হওয়ায় নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে উপজাতীয় ভোটই বড় ফ্যাক্ট বলে মনে করেন গুইমারা উপজেলার সচেতন মহল।

উল্লেখ্য, আগামী ৬ মার্চ গুইমারা উপজেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এই উপজেলায় মোট ভোটার সংখ্যা ২৭ হাজার ৯৯২ জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১৪, ৩৬৭ জন, ও মহিলা ভোটার ১৩,৬২৫ জন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

October 2018
M T W T F S S
« Sep    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় প্রথম পাতা

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন

error: Content is protected !!