খাগড়াছড়ি, , শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০

খাগড়াছড়িতে ১০৩টাকায় পুলিশে নিয়োগ পাওয়ায় আনন্দিত ওরা ৬৫জন

প্রকাশ: ২০১৯-০৬-৩০ ২০:১৯:০০ || আপডেট: ২০১৯-০৬-৩০ ২০:১৯:০২

নিজস্ব প্রতিবেদক: খাগড়াছড়ি জেলা পুলিশ সুপার মোহা; আহমার উজ্জামান এর আন্তরিকতায় এবার স্বচ্ছ নির্ভেজাল বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর নিয়োগে আনন্দিত সদ্য নিয়োগ প্রাপ্ত ৬৫জন তরুন-তরুনী।

আজ রবিবার (৩০জুন) বিকালে খাগড়াছড়ি পুলিশ লাইন অডিটোরিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ করেন খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার। গত ২৪ জুন থেকে বাচাই, প্রাথমিক মেডিকেল চেক আপ, পরীক্ষা ও ভাইভার মাধ্যমে মেধাদের নিয়োগে ফল প্রকাশ করেন তিনি।

নিয়োগ ও বাচাই কমিটির সভাপতি খাগড়াছড়ি জেলার পুলিশ সুপার মোহাঃ আহমার উজ্জামান (পিপিএম-সেবা) বলেন, পুলিশ কনস্টেবল ভর্তি নিয়ে কড়া নির্দেশ ছিল নবাগত মহাপুলিশ পরিদর্শক স্যারের। স্যারের নিদের্শ পেয়ে আন্তরিকতা নিয়ে দায়িত্ব পালন করেছি। কনস্টেবল ভর্তির জন্য পুলিশ হেডকোয়ার্টারের টিম ছিল। পাশপাশি আমার সহকর্মীরাও আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করেছে বলে এটি সম্ভব হয়েছে। ভর্তির শুরুর আগেই ঘোষণা দিয়েছিলাম, যোগ্যরা চাকরি পাবে এবং অযোগ্যরা কোনভাইে চাকরি পাবে না। আর নিয়োগে কোন ধরনের অনিয়ম বা আর্থিক লেনদেন থাকবে না। আর এসব বিষয়ে মহা পুলিশ পরিদর্শকের কড়া নির্দেশ থাকায় আমার কাজ করতে সুবিধা হয়েছে। ফলে সাধারণ ঘরের সন্তানরা ১০৩ টাকায় চাকরি পেলো। তিনি বলেন, পুলিশ বাহিনীতে আরও স্বচ্ছতা আসবে। আগামীতে স্বচ্ছতার মাধ্যমে পুলিশ বাহিনীর সকল কর্মকান্ড পরিচালিত করতেই আন্তরিকভাবে কাজ করছেন পুলিশ মহা পরিদর্শক।

খাগড়াছড়ি জেলার ৬৫জন তরুন-তরুনী ১০৩টায় চাকরী পেয়ে খুশি হয়েছেন চাকরি প্রার্থী ও তাদের পরিবার। দেশের অন্য জেলার মতো খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলায় পুলিশের কনস্টেবল নিয়োগের জন্য বিজ্ঞাপন দেয়ার পর প্রায় ৩৯৬ জন নারী-পুরুষ লাইনে দাঁড়ায়। তার মধ্যে প্রাথমিক বাছাইয়ে আসে ২৪৫ জন। লিখিত পরীক্ষায় অংশ নিয়ে পাশ করে ৯০ জন। সর্বশেষ শিক্ষানবিশ পুলিশ কনস্টেবল ( টিআরসি) হিসেবে নিয়োগ পান ৬৫ জন। এর মধ্যে ৬০ জন পুরুষ, ০৫ জন নারী।

সদ্য নিয়োগ পাওয়া ৬৫জনের মাঝে দেখা যায় আনন্দের উচ্ছাস। স্বচ্ছতার ভিত্তিতে নিয়োগ সম্পন্ন করায় আনন্দিত খাগড়াছড়ি পুলিশ সুপার মোহা; আহমার উজ্জামান পিপিএম সেবা।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.