খাগড়াছড়ি, , বুধবার, ২৪ জুলাই ২০১৯

হতদরিদ্রদের আবাসনে ৮২৬ কোটি টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন

প্রকাশ: ২০১৮-০৮-১৪ ২২:০৭:০৪ || আপডেট: ২০১৮-০৮-১৪ ২২:০৭:০৪

আলোকিত ডেস্ক: নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠীর জন্য পরিবেশবান্ধব বাসস্থান নির্মাণ ও মৌলিক সেবা প্রদানের লক্ষ্যে ৮২৬ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়ন প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)।
এ প্রকল্পের মাধ্যমে ৩৬টি জেলার পৌরসভা, ৪টি সিটি কর্পোরেশনের মোট পাঁচ হাজার হতদরিদ্র পরিবারকে সরাসরি দুই রুম বিশিষ্ট ফ্লাট দেওয়া হবে। ১৫ হাজার হতদরিদ্র পরিবারকে কমিউনিটি হাউজিং ডেভেলপমেন্ট ফান্ডের আওতায় গৃহঋণ প্রদানের মাধ্যমে আবাসন প্রদান করা হবে।সেইসঙ্গে এসব আবাসন সংশ্লিষ্ট সেবা যেমন পানি সংযোগ, সেনিটেশনসহ বর্জ্য ব্যবস্থাপনা করা হবে। প্রকল্পটিতে ইউকেএইড ও ইউএনডিপি ৬৯৮ কোটি টাকা অনুদান দেবে। বাকি ১২৮ কোটি টাকা সরকার নিজস্ব তহবিল হতে ব্যয় করবে।
মঙ্গলবার (১৪ আগষ্ট) শেরেবাংলা নগরস্থ এনইসি সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপার্সন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের প্রকল্পগুলোর বিষয়ে অবহিত করেন। সভায় ৩ হাজার ৮৮ কোটি টাকা ব্যয়ের ৯ প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। সবগুলোই নতুন প্রকল্প।
পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জীবনমান উন্নয়নের প্রকল্প বাস্তবায়নে বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় সুশৃঙ্খল হওয়ার প্রতি বিশেষ গুরুত্ব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেইসঙ্গে নতুন প্রকল্প বাস্তবায়নে কৃষি জমি পরিহারের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন তিনি।
মন্ত্রী জানান, ডিপিডিসির আওতায় ঢাকায় সাড়ে ৮ লাখ স্মার্ট প্রি-পেমেন্ট মিটার স্থাপন করার লক্ষ্যে ৬৫৮ কোটি টাকা ব্যয়ে অপর একটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্পের আওতায় ঢাকা জেলার রমনা, জিগাতলা, ধানমন্ডি, আদাবর, পরিবাগ, কাকরাইল, বনশ্রী, মগবাজার, শ্যামলী, কামরাঙ্গীরচর, বাংলাবাজার, নারিন্দা, পোস্তগোলা ও ডেমরা এবং নারায়ণগঞ্জ জেলার ফতুল্লা, শীতলক্ষ্যা ও সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলায় বিদ্যুতের প্রি-পেমেন্ট মিটার বসানো হবে। ফলে সিস্টেম লস কমে আসবে।
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সরকারের লক্ষ্য ছিল ২০২১ সালের মধ্যে বিদ্যুতের উৎপাদন ২০ হাজার মেগাওয়াটে উন্নীত করা। চলতি বছরের মাঝামাঝিতেই তা ১৯ হাজার ২শ মেগাওয়াট ছাড়িয়েছে। বছর শেষে ২০ হাজার মেগাওয়াটের উপরে বিদ্যুৎ উৎপাদন করা সম্ভব হবে বলে আশা করেন তিনি।
সভায় অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হলো, ৪২১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নবীনগর-আশুগঞ্জ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প, ২১৮ কোটি ৫৮ লাখ টাকা ব্যয়ে ভালুকা-গফরগাঁও-হোসেনপুর সড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প, প্রায় ১৪১ কোটি টাকা ব্যয়ে টাঙ্গাইল-দেলদুয়ার জেলা মহাসড়ক, করটিয়া-বাসাইল জেলা মহাসড়ক এর পকুল্লা-দেলদুয়ার-এলাসিন জেলা মহাসড়কের দেলদুয়ার-এলাসিন অংশকে যথাযথ মানে ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প, ৯৯ কোটি ৭৩ লাখ টাকা ব্যয়ে গাইবান্ধা-গোবিন্দগঞ্জ ভায়া নাকাইহাট জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্প, ৩১৩ কোটি ৩১ লাখ টাকা ব্যয়ে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের আওতায় ইস্টাবলিশমেন্ট অব ইন্টিগ্রেটেড এডুকেশনাল ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম প্রকল্প, ১৫৪ কোটি ৭৭ লাখ টাকা ব্যয়ে বাংলাদেশ পুলিশের ডাটা সেন্টারের ধারণক্ষমতা বৃদ্ধি প্রকল্প এবং ২৫৫ কোটি ৪৬ লাখ টাকা ব্যয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার আওতাধীন মহানন্দা নদীর শেখ হাসিনা সেতুর সঙ্গে সংযোগ সড়ক উন্নয়ন প্রকল্প।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

July 2019
M T W T F S S
« Jun    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন