খাগড়াছড়ি, , মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

“স্বপ্নের পাঠশালা” পরিদর্শণে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস; প্রতিষ্ঠান উন্নয়নে প্রতিবন্ধীকে দিলেন লক্ষ টাকার চেক

প্রকাশ: ২০২০-০৯-২২ ২১:১৭:৪৬ || আপডেট: ২০২০-০৯-২২ ২১:১৭:৪৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: “স্বপ্নের পাঠশালা” পরিদর্শণে গিয়ে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে প্রতিবন্ধী নিংপ্রুচাই মারমাকে দিলেন এক লক্ষ টাকার চেক।

মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলাধীন মহালছড়ি উপজেলার সিঙ্গিনালা গ্রামের অদম্য নিংপ্রুচাই মারমা নিজস্ব উদ্যোগে গড়ে তোলা ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের আনন্দের মাধ্যমে শেখার একটি ব্যতিক্রমধর্মী প্রতিষ্ঠান “স্বপ্নের পাঠশালা”। পরিদর্শণ শেষে প্রতিবন্ধী নিংপ্রুচাই মারমাকে এ অর্থ প্রদান করেন।

এসময় সাথে ছিলেন, মহালছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রিয়াংকা দত্ত, ভূমিকর্মকর্তা তাহমিনা আফরোজ ভূঁইয়া।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলার সুযোগ্য জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস সরেজমিন পরিদর্শনে করেন। তিনি নিংপ্রু মারমার শারীরিক খোঁজ খবর এবং স্বপ্নের পাঠশালা’র সার্বিক খোঁজ খবর নেন। তিনি এ প্রতিষ্ঠানটির উন্নয়নে ভবিষ্যতেও অবকাঠামোগত সুবিধা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে মাস্টার্স ডিগ্রি শেষ করে নিংপ্রু দীর্ঘদিন ক্যান্সারের সাথে যুদ্ধ করেও তার প্রবল ইচ্ছাশক্তি ও অদম্য মনোবল নিয়ে সমাজের জন্য কাজ করা থেকে পিছপা হননি। শারীরিক প্রতিবন্ধকতার চেয়ে মানষিক প্রতিবন্ধতাই সমাজের উন্নয়নে প্রধান অন্তরায় মনে করেন তিনি। তাঁর এ উদ্যোগ সত্যিই অনুকরণীয় ও প্রশংসার দাবী রাখে। এ প্রতিষ্ঠানে গ্রামের শিক্ষার্থীরা বিনা পয়সায় পড়ার ও খেলাধূলার সুযোগ পাচ্ছে। প্রতিষ্ঠার অল্প কিছুদিনের মধ্যেই ব্যতিক্রমী এ পাঠাগারটি এলাকার কোমলমতি শিশু-কিশোরদের মিলনমেলা হিসেবে পরিচিতি লাভ করে। নিংপ্রুচাই মারমার এ প্রতিষ্ঠানটিকে ভালোবেসে ইতোমধ্যে অনেক সুহৃদ, শুভাকাংখী বিভিন্ন সহায়ক সামগ্রী যেমন বই, খেলাধূলার সামগ্রী পাঠিয়েছেন । তিনি এ প্রতিষ্ঠানটিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চান অনেক দূর।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.