খাগড়াছড়ি, , বুধবার, ২৩ মে ২০১৮

শক্তিমান চাকমাসহ ছয়জন নিহতের ঘটনায় সরকারই দায়ী: রিজভী

প্রকাশ: ২০১৮-০৫-০৫ ১৯:২৩:৪৩ || আপডেট: ২০১৮-০৫-০৫ ১৯:২৩:৪৩

অনলাইন ডেস্ক:  পার্বত্য চট্টগ্রামে শক্তিমান চাকমাসহ ছয়জন নিহতের ঘটনায় সরকারকেই দায়ী করেছেন বিএনপি সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এডভোকেট রুহুল কবির রিজভী। তিনি বলেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার বেআইনী অস্ত্রকে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিয়ে দূর্বৃত্তদের মাথায় হাত রেখে দেশ চালাচ্ছে বলেই সারাদেশ খুন বেড়ে গেছে।

আজ নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। রিজভী আহমেদ বলেন, সরকারের সৃষ্ট অশান্তির আগুনে ভেতরে ভেতরে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে পার্বত্য চট্টগ্রামে আঞ্চলিক দলগুলোর সশস্ত্র তৎপরতায় শক্তিমান চাকমাসহ ছয়জন নিহত এবং বেশ কিছু সংখ্যক গুলিবিদ্ধ হয়েছে। নরসিংদীতে রায়পুরা উপজেলার বাঁশগাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল হককে দিনে-দুপুরে গুলি করে হত্যা করা আওয়ামী দু:শাসনের এক ভয়ঙ্কর দৃষ্টান্ত। সরকারের পায়ের তলা থেকে জনসমর্থন সরে গেছে এবং তারা বেআইনী অস্ত্রকে দেশব্যাপী ছড়িয়ে দিয়ে দূর্বৃত্তদের মাথায় হাত রেখে দেশ চালাচ্ছে বলেই সারাদেশ খুন বেড়ে গেছে।

এসমস্ত রক্তাক্ত ঘটনার জন্য সরকারই দায়ী। আমি দলের পক্ষ থেকে এসমস্ত রক্তাক্ত ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করছি। তিনি আরো বলেন, গাজীপুর ও খুলনা সিটি নির্বাচনে পুলিশি তান্ডব, গণগ্রেপ্তার এবং এলাকায় ভীতিকর পরিবেশ দিনকে দিন আরও পরিব্যাপ্ত হচ্ছে। নির্বাচনী প্রচারণায় বাঁধা প্রদানসহ নানাভাবে হয়রানিও করছে পুলিশ ও সাদা পোশাকের পুলিশ। খুলনা জেলা বিএনপি’র ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সাইফুল হাসান রবিসহ ১১ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
গতকাল গাজীপুরে বিএনপি ও শরীক দলের নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তারসহ নেতা-কর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে তল্লাশির নামে ব্যাপক হয়রানী করা হয়েছে। গতকাল রাতে পুলিশি অভিযানের অংশ হিসেবে গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপার হারুন-অর-রশিদ টঙ্গী থানায় পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়ে রুদ্ধদার বৈঠক করেন। তিনি রাতে টঙ্গীতে অঞ্চল ভিত্তিক একটি সমিতির কর্মকর্তাদের সাথেও গোপন বৈঠক করেন। রিজভী আহমেদ বলেন, বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতাদের নির্বাচনী প্রচারণায় জনতার ঢল দেখে আওয়ামী লীগ আইন-শৃঙ্ঘলা-বাহিনীকে দিয়ে হয়রানী শুরু করেছে। যতই দিন যাচ্ছে ততই আইন-শৃঙাখলা-বাহিনী সরকারী দলের নৌকা প্রার্থীর পক্ষে বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। নির্বিচারে আক্রমণ করে বিএনপি নেতাকর্মীদের রাতের ঘুম হারাম করে দিয়েছে। দুদিন আগে নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংগঠন সুজনের পক্ষ থেকেও সংবাদ সম্মেলন করে তাদের মাঠ জরিপের ফলাফল তুলে ধরতে গিয়ে দুই সিটিতে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে। গণমাধ্যমেও ভোট নিয়ে ভীতি ও শঙ্কার খবর প্রকাশিত হচ্ছে। গাজীপুরে সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রধান বাধা এসপি ও খুলনায় পুলিশ কমিশনার। তাদের নির্দেশে দুই সিটিতে পুলিশি তান্ডব চলছে। গণতন্ত্রকে নিরুদ্দেশ করার ফাইনাল কল দিতেই এই পুলিশ কর্মকর্তাদের দিয়ে ভোটারদের ওপর নির্যাতন চালানো হচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান আলতাব হোসেন চৌধুরী, ডা: এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. মামুন আহমেদ, প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব, সহ-দপ্তর সম্পাদক মুনির হোসেন, সহ-প্রচার সম্পাদক আসাদুল করিম শাহিন প্রমুখ।

Leave a Reply

পূর্বের সংবাদ

May 2018
M T W T F S S
« Apr    
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় প্রথম পাতা

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন

error: Content is protected !!