খাগড়াছড়ি, , শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০১৯

মানিকছড়িতে তক্ষক পাচারকালে পুলিশের হাতে আটক-৫

প্রকাশ: ২০১৯-০৪-১৫ ২৩:৪৫:০৯ || আপডেট: ২০১৯-০৪-১৬ ০৮:২৬:১১

মানিকছড়ি প্রতিনিধি: বন্যপ্রাণী তক্ষক বা টুট্যাং মহামূল্যবান সম্পদ এমন মিথ্যা তথ্য প্রচার করে প্রতিনিয়ত পার্বত্য জেলা থেকে এসব নিরীহ প্রাণী পাচার করছিল একটি সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেট।

১৫ এপ্রিল সোমবার এমন একটি ঘটনার গোপন সংবাদ পেয়ে মানিকছড়ি থানা পুলিশ ওই সংঘবদ্ধ চক্রের ৫সদস্যকে একটি তক্ষকসহ গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,দীর্ঘদিন পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়ির পাহাড়ী জনপদ থেকে একটি শক্তিশালী (বড়) বণ্যপ্রাণী পাচারকারী চক্র সক্রিয় রয়েছে। তারা বিভিন্ন স্থানে বন্যপ্রাণী তক্ষক বা টুট্যাং মহামূল্যবান প্রাণী বলে অপ-প্রচার চালিয়ে তা সংগ্রহ করে এবং ওই চক্রের সদস্যদের মাধ্যমে তা সমতলে পাচার লক্ষ লক্ষ হাতিয়ে নিচ্ছে। বিভিন্ন সময় পুলিশসহ নিরাপত্তা বাহিনী হাতে হওয়ার অসংখ্য ঘটনাও রয়েছে। তারপরও থেমে নেই তক্ষক বা টুট্যাং পাচার।

১৫ এপ্রিল সকাল সাড়ে ৯টায় মানিকছড়ি থানা পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পায় যে, উপজেলা জামতলা এক প্রভাবশালী ছাত্রনেতার বাড়িতে তক্ষক বেচা-কেনা হচ্ছে। এমন খবর পেয়ে থানার এস.আই রিটন কান্তি রায় সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ওই ছাত্রনেতা (উপজেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি) মো. হাফিজুর রহমান (৩৩) এর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে একটি তক্ষক ও এক নারী পাচারকারীসহ মোট ৫ ব্যক্তিকে আটক করতে সক্ষক হয়। পরে পুলিশ বাদী হয়ে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে তাদের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করেন।

আটককৃতরা হলেন, মো. হাফিজুর রহমান (৩৩),পিতা- মো.ইউনুছ মিয়া, মো. বেলাল হোসেন (৩২) পিতা- আমজাদ হোসেন,কাঞ্চন মালা (২৬) স্বামী মোখলেচুর রহমান সর্ব সাং গচ্ছাবিল, মানিকছড়ি ও সুবির গুপ্ত (৪২) পিতা নিবাস গুপ্ত, বোয়ালখালী,চট্টগ্রাম এবং স্বপন কান্তি নাথ (৪৫) পিতা- মনিন্দ্র লাল দে, ভুজপুর, ফটিকছড়ি।

বিকালে উপজেলার গাড়িটানা বনবিভাগের ফরেস্টার মো. আনোয়ার হোসেন এর উপস্থিতিতে উদ্ধারকৃত তক্ষক বা টুট্যাংটিকে থানার পার্শ্বে অবমুক্ত করা হয়।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

April 2019
M T W T F S S
« Mar    
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
2930  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় প্রথম পাতা

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন