খাগড়াছড়ি, , মঙ্গলবার, ২৪ নভেম্বর ২০২০

ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে সূদৃঢ় করতে কাজ করছেন মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ইউপি চেয়ারম্যান রতন কুমার শীল

প্রকাশ: ২০২০-১০-২১ ১৮:৫৮:২২ || আপডেট: ২০২০-১০-২১ ১৮:৫৮:২৪

দীপক সেন, মহালছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ি জেলাস্থ মহালছড়ি উপজেলার ১নং সদর ইউনিয়ন পরিষদ এলাকার সর্বস্থরের সাধারণ জনগণ ২০১৬ সালের পূর্বে অর্থাৎ বর্তমান চেয়ারম্যান রতন কুমার শীল দায়িত্ব গ্রহণের আগমুহুর্ত পর্যন্ত নিজেদের এক ধরনের অসহায় ও অভিভাবকহীন এবং এক ধরণের মানবিক অধিকারহীন ভাবতে শুরু করেছিলেন। অতিতের সেই সময়কালে দেখা যেত এলাকার সাধারণ মানুষ সেই সময়কার চেয়ারম্যানগণদের দেখা পেতে বা একটু দু:খ কষ্টের কথা জানাতে অনেক বেগ পেত। তাই এলাকার সাধারণ জনগণ দীর্ঘদিন যাবত অপেক্ষায় ছিলেন একটা পরিবর্তনের আশায়। তারই প্রতিফলন ঘটে ২০১৬ সালের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে। ঐ নির্বাচনে তৎকালীন উপজেলা আওয়ামীলীগের জনপ্রিয় সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান উপজেলা আওয়ামীলীগের সুযোগ্য সভাপতি, সমগ্র উপজেলার এলাকার গরীব দু:খী মানুষের বন্ধু ও কাছের মানুষ রতন কুমার শীল তাঁর নির্বাচনী এলাকার সর্বস্থরের সাধারণ ভোটারদের ব্যাপক সমর্থনে বিপুল ভোটে নির্বাচিত হয়ে ২০১৬ সালের ০৪এপ্রিল নির্বাচন পরবর্তী ২১ জুন শপথ গ্রহণের মধ্য দিয়ে মহালছড়ি ১নং সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব ভার গ্রহণ করেন। মহালছড়ি উপজেলার সর্বজন নন্দিত, জনপ্রিয়, মানবপ্রেমী, গরীব-দু:খী মানুষের অত্যন্ত প্রিয় জননেতা রতন কুমার শীল দায়িত্বভার গ্রহণের পর মুহুর্ত্ত থেকে যেসব বিষয়ের প্রতি অগ্রাধিকার দিতে দেখা যায় সেগুলির মধ্যে বিশেষ দৃষ্টি আর্কষণীয় দিক হলো এলাকার সাম্প্রদায়ীক সম্প্রীতি স্থিতিশীল রেখে সকল সম্প্রদায়ের সকল ধর্মাবলম্বী জনগোষ্ঠীর সর্বস্থরের মানুষের মধ্যে সৌভ্রাতৃত্ব বোধ তৈরী করে ভ্রাতৃত্বের বন্ধনকে সূদৃঢ় করা, এলাকায় শান্তিময় পরিবেশ বজায় রেখে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে মূখ্য ভূমিকা রাখা, এলাকা মাদক ও সন্ত্রাস নিমূলে প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে কাজ করা, বাল্য বিবাহ রোধে যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণ করা; এলাকার জনগণকে মামলা মোকদ্দমায় জড়ায়ি পড়তে না দিয়ে সমস্যাদির যথাযথ সমাধানে ভূমিকা রাখা; গরীব ছাত্র-ছাত্রীদের পড়া-লেখার ব্যবস্তা করা, অভাবী মানুষ ও রোগীদের চিকিৎসা সেবার ব্যবস্থা করা। সকল ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলিতে সার্বিক সহযোগিতা করা এলাকাকে ভিক্ষুক মুক্ত করতে আর্থিক সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া, বয়স্কভাতা, বিধবাভাতা, প্রতিবন্ধীভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর ভাতা, প্রতিবন্ধী শিক্ষা উপবৃত্তি, অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর শিক্ষা উপবৃত্তি, পুরো এলাকায় সোলার সিষ্টেম এর দ্বারা আলোকিত করার পদক্ষেপ নেয়া, অতি দরিদ্রদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্তা করা, ভিজিডি, ভিজিএফ, উল্লেখিত এসব জনহিতকর ও জনকল্যানমূলক কর্মসূচীর বাহিরে ব্যক্তিগত ভাবে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করার ব্যবস্তা করণ, বর্তমান “করোনা কালীন সময়ে নিজের জীবনের মায়া ত্যাগ করে, আয়-রোজগার না থাকা নিম্ন ও মধ্যবিত্ত মানুষসহ সকল অভাবী মানুষের জন্যে খাদ্য সামগ্রী ত্রাণ সামগ্রী প্রত্যেকের ঘরে ঘরে পৌঁছে দেয়া এগুলিই ছিল তাঁর অর্থাৎ মহালছড়ি ১নং সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রতন কুমার শীল এর নিয়মিত প্রধান কাজ। এর বাইরেও এলাকার আর্থ সামাজিক উন্নয়ন ও গ্রামীন অবকাঠামো উন্নয়নে রয়েছে তাঁর আন্তরিকতা পূর্বে কর্মকান্ডের উজ্জ্বল স্বাক্ষর যার মধ্যে রয়েছে এলাকার বিভিন্ন স্থানে পাকা সিঁড়ি, পাকা ড্রেন, কালভাট, সেতু, গ্রামীণ সড়ক ইত্যাদি সংস্কার ও নির্মাণ স্বাস্থ্য সম্মত পায়খানা, যাত্রী ছাউনি, গভীর ও অগভীর নলকূপ স্থাপন, একাদিক এইচবিবি রাস্তা নির্মাণ ও ফ্লাট সলিং রাস্তা নির্মাণ, কৃষি উন্নয়নে সেচ নালা নির্মাণ, গুরুত্বপূর্ণ স্থান সমূহের স্ট্রীট লাইটের মাধ্যমে আলোকিত করা। মুজিব বর্ষ উপলক্ষে এলাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উন্নয়ন ও মাল্টিমিডিয়া ক্লাসের ব্যবস্থা করণ এবং মুজিব বর্ষ উপলক্ষে জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের ঘটনা বহুল জীবনের জীবনালেখ্য জনসম্মুখে তুলে ধরতে তথ্য বোর্ড স্থাপন, বর্তমান করোনা কালীন সময়ে করোনা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য সুরাক্ষা সামগ্রী বিতরণ, বিশেষ করে মহালছড়ি বাজারের শর্তবষের পানীয় জলের স্থায়ী সমাধান করণে গভীর নলকূপ স্থাপনের মাধ্যমে বাজার ব্যবসায়ী ও সর্বসাধারণের জন্য সুপ্রিয় পানীয় জল সার্বক্ষণিক সরবরাহের সুব্যবস্থা করা। তাঁর দায়িত্ব পালন কালীন সময়ে দেখা যায় এলাকার উন্নয়ন, মানবতাবাদী কার্যক্রম, সর্বোপরি মানুষের প্রতি ভালোবাসা ও জাতি, ধর্ম, বর্ণ, নির্বিশেষে এলাকার সকল জনগোষ্ঠীর জনমানুষের ভাগ্যোন্নয়ন তথা কল্যানকর জনসেবা এবং বর্তমান তাঁর দায়িত্ব পালনকারীন এই সময়ে তাঁর পারফরমেন্স ও জনসেবার শিকৃতী হিসেবে ইতোমধ্যেই বেশ কিছু জাতীয় ও আর্ন্তজাতিক সংস্থা তাঁকে বিশেষ এ্যাওয়ার্ড পুরষ্কারে পুরস্কৃত করেছেন এবং শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যানের সম্মানের সম্মাননায় ভূষিত করেছেন। এসব এ্যাওয়ার্ড ও পুরষ্কারের মধ্যে রয়েছেÑ বঙ্গবীর এম.এ.জি ওসমানী স্মৃতি পদক; আর্ন্তজাতিক এসবিএন শান্তি পুরস্কার; বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস সম্মাননা স্মারক; আর্ন্তজাতিক হিউম্যান রাইটস শান্তি পদক, জাতীয় মানবাধিকার স্পিচ এ্যাওয়ার্ড, ক্রীড়া ক্ষেত্রে অবদানের শিকৃতী স্বরূপ জেলার শ্রেষ্ঠ ইউপি চেয়ারম্যান হিসেবে সম্মাননা এ্যাওয়ার্ড এছাড়াও আরও ২০টির অধিক সম্মাননা পুরষ্কার এ্যাওয়ার্ড রয়েছে তাঁর।

এক প্রশ্নের উত্তরে মহালছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মহালছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি রতন কুমার শীল বলেন, তিনি তাঁর কার্যক্রম ও উন্নয়ন কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে মহালছড়ি সদর ইউনিয়নকে জেলায় মডেল ইউনিয়ন হিসেবে রূপান্তিরত করার পরিকল্পনা রয়েছে। এ সময় তিনি আরও বলেন, তিনি সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে নয় চেয়ারম্যানের বাইরেও তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মহালছড়ি উপজেলা শাখার সভাপতি হিসাবে পুরো উপজেলার উন্নয়নের কাজ করার ইচ্ছা রয়েছে এবং সেই হিসাবে তিনি আন্তরিকতার সহিত কাজ করে যাচ্ছেন। আগামীতে পুরো মহালছড়ি উপজেলাকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.