খাগড়াছড়ি, , মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২

কচ্ছপিয়ায় বসতভিটা বিরোধের জেরে হত্যার হুমকি থানায় জিডি

প্রকাশ: ২০২২-০৫-০৮ ১৬:২৭:৩১ || আপডেট: ২০২২-০৫-০৮ ১৬:২৭:৩৫

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধিঃ রামুর কচ্ছপিয়ায় আব্দুল মজিদ নামের এক অসহায় ব্যাক্তিকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। তাঁর বসতভিটা দখলে নিতে প্রভাবশালী মহলটি এ কাণ্ড ঘটিয়ে চলেছে। এ ঘটনায় চায়ের দোকান লুটপাট করার হুমকিও দেওয়া হচ্ছে। চলছে নানা গালমন্দও।

আব্দুল মজিদ কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের তুলাতলী গ্রামের বাসিন্দা আবু তালেবের ছেলে। তাঁর ২৫ বছরের দখলীয় বতসভিটা দখলে নিতে একই ইউনিয়নের ফাক্রিকাটা গ্রামের ইসমাইল, মো.সাগর, বেদার মিয়া গত ১লা মে সাড়ে ১২ টার দিকে তুলাতলীস্থ আবদুল মজিদের চায়ের দোকানে প্রকাশ্যে দিন দুপুরে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করতে করতে তাকে হত্যার উদ্দেশ্য দোকানে ঢুকে টানাহেঁচড়া করে মালামাল ছড়িয়ে ছিড়েয়ে তছনছ করে ফেলে এবং তাকে ও পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি প্রদান করে।

এ ঘটনায় আব্দুল মজিদ নিরুপায় হয়ে রামু থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছে। বর্তমানে সাধারণ ডায়েরিটি গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ পরিদর্শক মোঃ নোমানের নিকট তদন্তদীন আছেন।

অসহায় আবদুল মজিদ জানান, ২০১৯ সালে ১লা জুন হাজী ইসমাইলের জমির মাথাখিলা দাবি করে, তার নির্দেশে জমির উদ্দিন, নুরুল আবছার, মনির উদ্দিন সহ ১০-১২ জনের একটি দল। আমার বসতভিটা ও পুকুরের মাছ ধরা কে কেন্দ্র করে আমার পিতা আবু তালেব কে পিটিয়ে নির্মমভাবে হত্যা করেছেন। হত্যা মামলাটি বিজ্ঞ আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।

তিনি আরো জানান- তাঁর পিতা হত্যার মুল পরিকল্পনাকারী হাজী ইসমাইল প্রভাবশালী হওয়ায়, কৌশলে সে হত্যা মামলা থেকে রেহাই পেয়ে পূনরায় তাঁকেও পিতার মত হত্যা করার উদ্দেশ্য বার বার হামলা চালাচ্ছে। তিনি প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ব্যবসায়ী সৈকত, হাবিবুর রহমান, নুরুল আমিন, চন্দ্র দাশও রেজাউল করিম রেজা জানান, শেষ রমজানের দিন জোহরের নামাজের আগে হাজী ইসমাইলের ছেলে বেদার মিয়া ও নাতি মোহাম্মদ সাগর দুপুরে আব্দুল মজিদের দোকানে ঢুকে তাকে মারতে যেতে দেখেছি এবং তারা চলে যাওয়ার সময় তার পিতার পরিনতি তার ও হবে শুনেছি।

এ বিষয়ে জিডি তদন্তকারী কর্মকর্তা গর্জনিয়া পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপ পরিদর্শক(এএসআই) মোঃ নোমান মুঠোফোনে জানান- জিডি তাঁর নিকট আছে তদন্ত করে সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নিবেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

error: Content is protected !!