খাগড়াছড়ি, , মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০

বান্দরবানে ভূয়া দলিল তৈরি করে জমি আত্মসাতের চেষ্টা; প্রতারক বাবুল গ্রেফতার

প্রকাশ: ২০২০-১০-০৪ ২৩:২৯:৫৯ || আপডেট: ২০২০-১০-০৪ ২৩:৩০:০১

জহির রায়হান, বান্দরবান:বান্দরবানে জমি বিক্রেতার স্বাক্ষর জাল করে ভূয়া হলফনামা তৈরি করে সুয়ালক ইউনিয়নে ৮০ শতক জমি গ্রাস করার অপচেষ্টা করার মামলার প্রেক্ষিতে আদালত প্রতারক বাবুল বিশ্বাস ওরফে (যমুনা বাবুল)কে গ্রেফতারের নির্দেশ প্রদান করে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, জেলা সদরের সুয়ালক এলাকার জমির মালিক ইলিয়াছ উদ্দিন চৌধুরীর অভিযোগের বিষয়টি আদালত আমলে নিয়ে রবিবার (৪ অক্টোবর) প্রতারক বাবুল বিশ্বাসকে আদালতে স্বশরীরে হাজিরের নির্দেশ প্রদান করে। আদালত বাদির আবেদন পর্যালোচনা করে প্রতারণার বিষয়টি স্পষ্ট প্রতীয়মান হওয়ায় প্রতারক বাবুল বিশ্বাসকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ প্রদান করে। 

আরো জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতি চলাকালে গত ২৩ জুলাই প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত বাবুল বিশ্বাস জমি বিক্রেতার উপস্থিতি ছাড়ায় দুইজনকে ভূয়া স্বাক্ষী রেখে ৮০ লক্ষ টাকা প্রদান করা হয়েছে এই মর্মে একটি হলফনামা তৈরি করে। আর এই হলফনামাটি সম্পাদন করেন পিটিশন রাইটার মোহাম্মদ শাহজাহান। জাল হলফনামা সম্পাদনের পর বাবুল বিশ্বাস নিজেকে জমির মালিক দাবী করে প্রকৃত মালিক ইলিয়াছ উদ্দিন চৌধুরীকে বিভিন্নভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন  ও তৃতীয় আরেকটি পক্ষের কাছে বিক্রির পাঁয়তারা চালিয়ে আসছিল। 

এই ব্যাপারে গত ২৬ সেপ্টেম্বর বাবুল বিশ্বাসের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি প্রতিবেদককে বলেন, আমি জমি ক্রয়ের জন্য অর্থ প্রদান করেছি, এর বেশি কিছু বলতে পারবোনা।

আরো জানা গেছে, জমির মালিক ইলিয়াছ উদ্দিন চৌধুরী কর্তৃক মামলা দায়েরের পর গত ২৩ সেপ্টেম্বর বাবুল বিশ্বাসদের আত্মসমার্পনের নির্দেশ প্রদান করে আদালত এবং ২৮ সেপ্টেম্বর উক্ত জমির দলিল বাবুল বিশ্বাস জমা না দিয়ে জমির মালিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে। রোববার জমির মালিক ইলিয়াছ একটি ফৌজদারি মামলা দায়ের করলে আদালত বাবুল বিশ্বাসকে গ্রেফতারের নির্দেশ প্রদান করে।

মামলার আইনজীবি এমদাদ উল্লাহ বলেন, ফৌজদারী মামলা করায় অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন এর আদালত বাবুল বিশ্বাসকে গ্রেফতারের নির্দেশ প্রদান করে।

প্রসঙ্গত, বান্দরবান জেলায় ভূমির মালিককে কোন অর্থ পরিশোধ না করে বাবুল বিশ্বাস কর্তৃক ভূয়া দলিল তৈরি করে জমির মালিক দাবী করার ঘটনা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ হলে তোলপাড় শুরু হয় এবং স্থানীয়রা ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.