খাগড়াছড়ি, , শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০

প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বাশিস) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা

প্রকাশ: ২০২০-০৯-০৭ ০০:৪১:৪৯ || আপডেট: ২০২০-০৯-০৭ ০০:৪১:৫১

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: আগামী ৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবসে শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ ঘোষণা করতে ‘‘শিক্ষক দিবস” উপলক্ষে নেওয়া কর্মসূচি অনুযায়ী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণের দাবিতে দেশের ৬৪ জেলা ন্যায় খাগড়াছড়ি জেলাও স্মারকলিপি দিয়েছে এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা।

রবিবার (৬ আগস্ট) বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বাশিস) ও এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরামের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়। খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাসের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর এই স্মারকলিপি দেন বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি (বাশিস) খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি উষা আলো চাকমা। এসময় সাথে ছিলেন, সাধারন সম্পাদক তাতুমুনি চাকমা ও সাংগঠনিক সম্পাদক রতন কুমার দে।

খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সভাপতি উষা আলো চাকমা বলেন, করোনাকালিন সময়ে সরকারের দিক নির্দেশনার কারনে সকল এমপিও শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে আমরা তিন জন এই স্মারকলিপি প্রদান করেছি। আমরা মনে করি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা দেশরত্ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার শত প্রতিকূলতার মাঝেও দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। তিনি দেশের ২৬ হাজারেরও অধিক প্রাথমিক বিদ্যালয় এক সাথে সরকারী করণ করেছেন। আমাদের বিশ্বাস তিনি আমাদের কষ্টের কথা বুঝবেন।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীগণ চরম বেতন বৈষম্যের শিকার। এক হাজার টাকা বাড়ি ভাড়া ও চিকিৎসা ভাতা ৫০০ টাকা দীর্ঘদিনেও পরিবর্তন হয়নি। ২৫ শতাংশ ঈদ বোনাস দীর্ঘ ১৬ বছরেও পরিবর্তন হয়নি। এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বদলি প্রথা চালু নেই। উচ্চতর গ্রেড দিতেও শিক্ষকদের চরম হয়রানি করা হচ্ছে। অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকদেরকে দীর্ঘ ২৮বছরেও এমপিওভুক্ত করা হয়নি। এজন্য শিক্ষক সমাজে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। আগামী ৫ অক্টোবর বিশ্ব শিক্ষক দিবস। এই দিন শিক্ষকদের অধিকার প্রতিষ্ঠার দিন। বিশ্ব শিক্ষক দিবসে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি ও এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান জাতীয়করণ লিয়াজোঁ ফোরাম শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ ঘোষণার দাবিতে শিক্ষক সমাবেশ কর্মসূচির আয়োজন করবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.