খাগড়াছড়ি, , বুধবার, ২০ জানুয়ারী ২০২১

পার্বত্য অঞ্চলকে একটি শান্তির এলাকা দেখতে চাই… স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশ: ২০২০-১২-২৪ ২২:৩৫:৪০ || আপডেট: ২০২০-১২-২৪ ২২:৩৫:৪২

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: ছন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান এমপি বলেছেন পাহাড়ে রক্তপাত, খুন-খারাবি, চাঁদাবাজী, সন্ত্রাসী বন্ধে পার্বত্য চট্রগ্রাম থেকে প্রত্যাহারকৃত খালি সেনাক্যাম্প গুলোতে পুলিশ মোতায়েন করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে । পুলিশের পাশাপাশি সেখানে আনসারও মোতায়েন করা হবে। দূর্গম সীমান্তবর্তী ক্যাম্পগুলোতে বিজিবি মোতায়েন করা হবে। এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে কথা বলেছি। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে তা দ্রুতই বাস্তবায়ন করা হবে। এখানে তিনি স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা কামনা করেন। আজ বৃহস্পতিবার (২৪ ডিসেম্বর) বিকেলে খাগড়াছড়ি জেলার বিশেষ আইনশৃংখলা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, পার্বত্য চট্রগ্রামের পাহাড়ি-বাঙ্গালী সহাবস্থান নিশ্চিত করতে হবে। সে জন্য ভুমি সমস্যা থেকে শুরু করে এর যা যা অন্তরায় রয়েছে সবগুলো সমাধান করা হবে। আমরা পার্বত্য অঞ্চলকে একটি শান্তির এলাকা হিসেবে দেখতে চাই। আমরা সবাই বাংলাদেশের নাগরিক, এ কথাটাই আমরা এখানে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। আমরা চাই, পার্বত্য চট্রগ্রাম সমতল ভূমির সাথে তাল মিলিয়ে একসাথে চলবে। তিনি আরও বলেন, শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য যা কিছু করার প্রয়োজন তা করতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন। আমরা রক্তপাতহীনভাবে শান্তি প্রতিষ্ঠা করতে চাই। আমরা দুর্বল নই, কেউ যদি মনে করে আমরা দূর্বল তাহলে সেটা হবে ভূল। আমরা বল প্রয়োগ করতে চাই না। আমাদের বিশ্বাস আলাপ আলোচনার মাধ্যমে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা সম্ভব।

খাগড়াছড়ির জেলা প্রশাসক প্রতাপ চন্দ্র বিশ্বাস’র সভাপতিত্বে এ বিশেষ আইনশৃংখলা সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন খাগড়াছড়ির সাংসদ ও টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। উন্মুক্ত আলোচনায় খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র মোঃ রফিকুল আলম, জেলার মহালছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান বিমল কান্তি চাকমা, দীঘিনালা উপজেলা চেয়ারম্যান হাজী মোঃ কাশেম, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোঃ রইছ উদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এসময় মন্ত্রীর একান্ত সচিব দেওয়ান মাহবুবুর রহমান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা শরীফ মাহমুদ অপু, গুইমারা রিজিয়ন কমান্ডার ব্রি. জে. মোঃ শাহরিয়ার জামান, পার্বত্য চট্রগ্রাম বিজিবির রিজিয়নাল কমান্ডার ব্রি. জে. ফরিদুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি বিজিবির সেক্টর কমান্ডার ক. জাহাঙ্গীর আলম, খাগড়াছড়ি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু, সদর জোন কমান্ডার লে. ক. জাহিদুল ইসলাম, খাগড়াছড়ি রিজিয়নের প্রতিনিধি মেজর এম এম সালাহউদ্দিন, পুলিশ সুপার মোঃ আব্দুল আজিজ সহ সামরিক-বেসামরিক ও উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.