খাগড়াছড়ি, , সোমবার, ৬ এপ্রিল ২০২০

চাঁদা চাওয়ার প্রতিবাদে লামায় সিএনজি ধর্মঘট

প্রকাশ: ২০২০-০২-০৫ ১৮:০০:৩৯ || আপডেট: ২০২০-০২-০৫ ১৮:০০:৪৫

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম, লামা: বান্দরবান জেলার লামা উপজেলার সরই ইউনিয়নের কেয়াজুপাড়া বাজারে চাঁদা চাওয়ার প্রতিবাদে অর্ধবেলা ধর্মঘট পালন করেছে ২টি সিএনজি, মাহিন্দ্রা ও অটোরিক্সা মালিক সমিতি।

বুধবার (০৫ ফেব্রুয়ারী) সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এই ধর্মঘট চলে। হঠাৎ করে ডাকা এই ধর্মঘটে গন্তব্যে যেতে না পেরে জনসাধারণের ভোগান্তি বেড়ে যায়। দুপুরে স্থানীয় প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

ধর্মঘট আহবায়ন করা সংগঠন গুলো হল, “সরই সিএনজি, মাহিন্দ্রা ও অটোরিক্সা মালিক সমিতি” এবং “লোহাগাড়া উপজেলার অটোরিক্সা ও সিএনজি চালক কল্যাণ সমবায় সমিতি লিঃ”। এসময় কেয়াজুপাড়া বাজার হতে লামার বিভিন্ন সড়কে এবং কেয়াজুপাড়া বাজার হতে লোহাগাড়া সড়কে সিএনজি সহ ছোট যান পরিবহন চলাচল বন্ধ ছিল।

সরই সিএনজি, মাহিন্দ্রা ও অটোরিক্সা মালিক সমিতি সভাপতি আবু কালাম ও সাধারণ সম্পাদক মো. জাবেদ বলেন, বুধবার সকালে কেয়াজুপাড়া বাজারের সভাপতি ও ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক মো. সেলিম সিএনজি স্টেশনে এসে মাসিক ১ হাজার ৫শত টাকা হারে চাঁদা দাবী করে। বাজার এলাকায় গাড়ি রাখতে হলে তাকে চাঁদা দিতে হবে বলে জানায়। চাঁদা না দিলে গাড়ি রাখা যাবে না বলে হুশিয়ারী দেয়। গত ২ ফেব্রুয়ারী সেলিম আমাকে ডেকে আজ বুধবার ৫ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে চাঁদা দিতে সময় বেধে দেয়। সময়মত তাকে চাঁদা না দেয়ায় আজ বুধবার সকালে এসে আমাদের সিএনজি কাউন্টারে লাইনম্যানের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। এসময় সে চেয়ার-টেবিল লাথি দিয়ে ফেলে দেয়। সেই অপমানে আমরা সিএনজি চলাচল বন্ধ রাখি।

লোহাগাড়া উপজেলার অটোরিক্সা ও সিএনজি চালক কল্যাণ সমবায় সমিতি লিঃ অংশের সাধারণ সম্পাদক মো. রাসেল ও লাইনম্যান মো. সাইদুল আলম বলেন, সকাল ৯টার দিকে আমাদের সিএনজি কাউন্টারে এসে সেলিম ৩ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। না দেয়ায় গাড়ি বন্ধ করে দেয়। আমাদের সিএনজি ড্রাইভাররা সারাদিন গাড়ি চালিয়ে মালিকের ভাড়া দিতে পারেনা। সেখানে অন্য লোককে কিভাবে চাঁদা দিবে।

কেয়াজুপাড়া বাজারের সভাপতি মো. সেলিম বলেন, বাজার পরিষ্কার করতে খরচের জন্য সিএনজি মালিক সমিতি হতে চাঁদা চাওয়া হয়েছিল। তবে এই বিষয়ে বাজার কমিটির সবাই জানে কিনা জিজ্ঞাসা করলে তিনি প্রসঙ্গটি এড়িয়ে যান। বাজার কমিটির দপ্তর সম্পাদক মো. আলভি বলেন, সিএনজি হতে মাসিক চাঁদা দাবীর বিষয়টি আমরা বাজার কমিটি জানিনা।

সরই পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মো. শফিউল আলম বলেন, সিএনজি সমিতি থেকে চাঁদা চাওয়ার প্রতিবাদে সকাল থেকে ড্রাইভাররা সিএনজি চলাচল বন্ধ করে দেয়। খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। সঠিক বিচার করা হবে, জানিয়ে সিএনজি চালাতে অনুরোধ করি। দুপুর থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফরিদ-উল আলম বলেন, সকাল থেকে সিএনজি বন্ধ ছিল। দুপুরে সেনাবাহিনী দুইপক্ষকে ডেকে নিয়ে মীমাংসা করেছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

April 2020
M T W T F S S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন