খাগড়াছড়ি, , মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

খাগড়াছড়িতে বন্যা দুর্গতদের মাঝে সদর জোনের খাবার বিতরণ

প্রকাশ: ২০১৯-০৭-১১ ০০:০১:২০ || আপডেট: ২০১৯-০৭-১১ ০০:০১:২৫

নিজস্ব প্রতিবেদক: আর্তমানবতার সেবার অংশ হিসেবে খাগড়াছড়িতে পাহাড়ী ঢলে সৃষ্ট বন্যায় আটকা পড়া এবং ভূমিধ¡সে ক্ষতিগ্রস্থ গৃহহীন পাহাড়ীদের উদ্ধার করে রান্না করা ও শুকনো খাবার বিতরণ করেছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী (খাগড়াছড়ি সদর জোন)।

বুধবার (১০ জুলাই ২০১৯) দুপুর ২ টায় এবং রাত ৮ টায় খাগড়াছড়ি সদর উপজেলার হেডম্যানপাড়া মধুবাজার (ধর্মঘর), ঠাকুরছড়া উচ্চ বিদ্যালয় এবং চ¤পাঘাট (নতুন বাজার) আশ্রয় কেন্দ্রে উপস্থিত ৩২০ জন পানিবন্দীদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করেন খাগড়াছড়িসদর জোন। উল্লেখ্য, খাগড়াছড়ি সদর জোন গত ০৯ জুলাই ২০১৯ তারিখ রাত ৮ টায় উত্তর গঞ্জপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫৫০ জন পানিবন্দীদের মাঝে রান্না করা খাবার বিতরণ করেছে।

রান্না করা খাবার পেয়ে পানিবন্দী পাহাড়বাসী সেনাবাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেছেন এবং ভবিষ্যতেও বিভিন্ন প্রয়োজনে নিরাপত্তা বাহিনীর সহায়তা কামনা করেছেন।

এ সময় খাগড়াছড়ি সদর জোনের দায়িত্বপ্রাপ্ত সেনাসদস্য বলেন, খাগড়াছড়ি সদর জোন (২২ বীর) তথা বাংলাদেশ সেনাবাহিনী চলমান বর্ষা, পাহাড়ী ঢল এবং যে কোন দুযোর্গপুর্ণ মুহুর্তে আর্তমানবতার সেবায় বেসামরিক প্রশাসনকে তাৎক্ষণিক সহায়তায় সার্বক্ষণিক পাশে ছিলো এবং আগামীতেও থাকবে। শান্তি-সম্প্রীতি এবং উন্নয়ন এই মুলমন্ত্রকে সামনে রেখে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পার্বত্য চট্টগ্রামে দীর্ঘদিন যাবৎ অত্যান্ত দক্ষতার সাথে পেশাগত দায়িত্ব পালন করে আসছে। পার্বত্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন উন্নয়ন মুলক কর্মকান্ডের পাশাপাশি সার্বিক মান উন্নয়নে ও বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তায় সেনাবাহিনীর ভুমিকা অনস্বীকার্য।

এ বিষয়ে খাগড়াছড়ি সদর জোন অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল মোহাম্মদ আরাফাত হোসেন, পিএসসি এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, পাহাড়বাসীর আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের পাশাপাশি শিক্ষা, চিকিৎসাসহ সকল সম্প্রদায়ের মাঝে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় সেনাবাহিনীর এমন উদ্যোগ ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

November 2019
M T W T F S S
« Oct    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন