খাগড়াছড়ি, , মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০

কাপ্তাই আওয়ামী লীগ-বিএনপি’র দপ্তরবিহীন রাজনীতি ৩৫ বছর

প্রকাশ: ২০১৯-০৮-১৮ ১৮:২২:৫১ || আপডেট: ২০১৯-০৮-১৮ ১৮:২২:৫৬

মাহফুজ আলম, সিনিয়র রিপোর্টার, কাপ্তাই: রাঙ্গামটি জেলার কাপ্তাই উপজেলায় আওয়ামী লীগ-বিএনপি প্রধান দুইটি দলের রাজনীতি চলতে থাকলেও দীর্ঘ ৩৫ বছর ধরে গড়ে উঠেনি কোন অফিস বা দলীয় কার্যালয়। ফলে কাপ্তাইয়ের প্রধান দুইটি দলের রাজনীতি চলে আসছে ভাসমান অবস্থায়। বিএনপি ও আওয়ামী লীগ এর কেন্দ্রীয় কোন কর্মসূচী দেওয়া হলে তা প্রস্তুতি নিতে কাপ্তাইয়ের হোটেল, কুলিং কর্ণার, চায়ের দোকান বা অন্য কোন দপ্তরের অফিস বা ক্লাবে অস্থায়ীভাবে বসে তা সিদ্ধান্ত নেয় কোনভাবে।

এই ভাবেই দীর্ঘ ৩৫ বছর চলছে দুই দলের রাজনীতির কর্মকান্ড ও সিদ্ধান্ত সমূহ। বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের আওয়ামীলীগ ও বিরোধী দলের সচেতন নেতাকর্মীরা এ বিষয়ে আক্ষেপ করে বলেন যে, দলই ক্ষমতায় আসেন ঐ দলের মন্ত্রী এমপিরা গত ৩৫ বছরে কয়েক কোটি টাকার অনুদান ও খাদ্যশস্য বরাদ্দ দিয়েছেন উন্নয়নের সকল কর্মকান্ড সফল করার লক্ষ্যে। কিন্তু দলীয়ভাবে নেতাকর্মীদের উদাসীনতার কারণ ও অস্বচ্ছ রাজনীতি দলে ধাবিত হওয়ায় এ যাবৎ দুই দলেরই কারো অফিস ঘর বা দলীয় কার্যালয় গড়ে উঠেনি।

শুধু তাই নয় তারা আরও বলেন আওয়ামী লীগ সরকার বর্তমানে এলাকার উন্নয়নের জন্য কাপ্তাইয়ের দলীয় নেতাকর্মীদের মাধ্যমে কল্পনাতীত খাদ্যশস্য ও নানাবিধ প্রকল্প বরাদ্দ দিয়েছেন। কিন্তু গত সাড়ে নয় বছরে কাপ্তাইয়ের উন্নয়নের জন্য যে বরাদ্দ ছিল তা দিয়ে সকল উন্নয়ন করার পাশাপাশি একটি দলীয় কার্যালয় করা কোন ব্যাপার ছিল না। অথচ সরকার দলীয় ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা আজও ভাসমান অবস্থায় দলীয় কার্যক্রম চালাতে হচ্ছে। বিষয়টি সকলকে ভাবিয়ে তুলেছে।

এদিকে কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামী লীগের কাউন্সিল হয়। এতে অংসুইচাইন চৌধুরী কাপ্তাই উপজেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি পদে নির্বাচিত হন আর সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন চিৎমরম ইউপি চেয়ারম্যান থোয়াইচিং মং। এই দুটি পদে নির্বাচনের পর কাপ্তাই উপজেলা আ’লীগ পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন হওয়ার কথা থাকলেও রোষানলে পড়ে থমকে আছে দাদা কেন্দ্রীক কাপ্তাইয়ের আ’লীগ রাজনীতির দৌড়-ঝাপ। এ কারণে সৃষ্টি হচ্ছে না নবীন প্রবীনদের নেতৃত্ব। ফলে তৃনমূলেও নেতৃত্ব বিকশিত না হওয়ায় দলের অভ্যন্তরীণ কাঠামোই ক্রমেই ঝিমিয়ে পড়েছে।

নবীন প্রবীন ও পরীক্ষিতদের সমন্বয়ে কমিটি গঠনে বেশীর ভাগ নেতাকর্মীরা একমত। তারা বলছেন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর চর্চার চেয়ে দলীয় আদর্শ বা কর্মসূচী বাস্তবায়নই অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ দলে।

এদিকে কাপ্তাই উপজেলা বিএনপি’র সাংগঠনিক কর্মকান্ডে আরো করুন দশা নেমে এসেছে। কাপ্তাই উপজেলা বিএনপি’র বর্তমান অবস্থায় কোন কমিটিই নেই। দীর্ঘ দিন ধরে অনেকটাই অভিভাবকহীন কাপ্তাইতে রাজনীতি চলছে।

বর্তমানে দলের দায়িত্ব প্রাপ্ত আহবায়ক সৈয়দ ইসমাইল নিজামী ও সদস্য সচিব জাফল আহম্মদ স্বপন কাপ্তাই উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে ইউনিয়ন কমিটি ও উপজেলা কমিটি গোছানোর লক্ষে জেলা কমিটি তাদের নিকট দায়িত্ব দিয়েছেন। ওই হিসেবে কাজ করছেন বলে দাবী করেন আহবায়ক ও সদস্য সচিব।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

May 2020
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন