খাগড়াছড়ি, , শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০

কাপ্তাইয়ের পাহাড়ে আগাম পেয়ারার বাম্পার ফলন

প্রকাশ: ২০২০-০১-১৮ ২১:৫৯:৩০ || আপডেট: ২০২০-০১-১৮ ২১:৫৯:৩৬

মাহফুজ আলম, কাপ্তাই: এবার কাপ্তাইয়ের পাহাড়ে আগাম সৃজনে পেয়ারার ফলন হয়েছে। যদিওবা মার্চ/এপ্রিল ও বর্ষা মৌসুমে প্রাকৃতিক ঋতু অনুসারে পেয়ারার ফলন হয়ে থাকে। কিন্তু কৃষকদের কলম পদ্ধতি চালু করায় এর সফলতা আসায় কাপ্তাইয়ের বিভিন্ন পাহাড়ী এলাকায় এবার আশানুরুপ পেয়ারার বাম্পার ফলন হয়েছে। এর ফলে কৃষকরা ধুমছে বেচাকেনা করছে পেয়ারা এবং এর অধিক মুনাফা অর্জন করতে পেরে পেয়ারা বিক্রেতারা খুশি। এছাড়াও উন্নতমানের পেয়ারার ফলন ভাল হওয়ায় চাষীরা লাভবান হচ্ছে পেয়ারা বিক্রি করে অপরদিকে কাপ্তাইয়ে আসা পর্যটকদের কাছে এর চাহিদাও দিগুন বেড়ে গেছে। সুস্বাদু ও মিষ্টি প্রকৃতির পেয়ারা হওয়ায় পথে বসেও বিক্রেতাগণ অবসর পাচ্ছে না পেয়ারা বেচতে।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, কাপ্তাই উপজেলার ওয়া¹া, রাইখালী, চিৎমরম ও হরিণছড়া, বাঙ্গালহালিয়াসহ বিভিন্ন দুর্গম এলাকার পাহাড়ে বাম্পার ফলন হয়েছে পেয়ারার। আগাম পেয়ারার অধিক ফলন হওয়ায় স্থানীয় ও বাহিরের বাজারগুলোর চাহিদার পাশাপাশি ভাল দামে বেচাকেনা করতে পারছে প্রান্তিক কৃষকরা। চাষীরা বলছেন এবার কাপ্তাইয়ে অন্যান্য ফলের অধিক ফলনের পরেই বাণিজ্যিকভাবে চালু হয়েছে দেশীয় পেয়ারার। কৃষকরা সঠিক সময়ে সঠিকভাবে পেয়ারা চাষের পরিচর্যা করতে পারায় অন্যান্য বছরের তুলনায় এবার কাপ্তাইয়ের স্থানীয় চাহিদা পূরণ করে এসব উৎপাদিত পেয়ারা ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন হাটবাজারে পাইকারী দরে বিক্রি করে প্রতিদিন সরবরাহ করা হচ্ছে কাপ্তাই থেকে।

পেয়ারা বিক্রেতা সাইমং, আলী হোসেন, ঝন্টু, আনোয়ার, স্বপন ও বাদল তনচংগ্যা বলেন এবার বড় পেয়ারা কাপ্তাইতে পাইকারী দরে ডজন হিসেবে বিক্রি করতে হচ্ছে। এক ডজন পেয়ারার দাম পড়ছে মাত্র ৬০/৭০ টাকা। আর পাইকারী দরে নিতে গেলে এর চেয়ে অধিক কমে মিলছে পেয়ারা। কৃষক তরু তন্চংগ্যা, সুমলা চাকমা ও বিমল চাকমা এ প্রতিনিধিকে বলেন কাপ্তাই উপজেলার বিভিন্ন স্থানে এবার আগাম পেয়ারার ফলন হওয়ায় কৃষকরা আনন্দিত। তারা চাষের পূর্বে যে ব্যাংক লোন করেছে তা যথাসময়ে পেয়ারা বিক্রি করে ব্যাংক ঋণ পরিশোধ করতে পারবে বলে আশা ব্যক্ত করেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.