খাগড়াছড়ি, , শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

উপজাতি সন্ত্রাসীর হাতে বাঙ্গালী মহিলার সম্ভ্রম হানীর চেষ্টা; ভিকটিম আহত

প্রকাশ: ২০১৮-০৭-১০ ২০:২৮:১৪ || আপডেট: ২০১৮-০৭-১০ ২০:২৮:১৪

নিজস্ব প্রতিনিধি, গুইমারা: উপজাতি সন্ত্রাসীর হাতে গুইমারায় নিরিহ বাঙ্গালী মহিলা লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনা ঘটেছে। আজ মঙ্গলবার ১০ জুলাই সকাল ১০ ঘটিকার সময় গুইমারা উপজেলার হাফছড়ি ইউনিয়নের ষাটগ্রাম পাতাছড়া নামক এলাকায় ঘটনাটি সংঘঠিত হয়।

সূত্রে জানাযায়, উপজাতি সন্ত্রাসীরা সিগারেট ধরানোর জন্য চলাচল রাস্তার পাশের বাড়ীর কুলসুম বেগম এর নিকট আগুন চায়। সন্ত্রাসীদের আগুন সরবরাহ করার অনিচ্ছা থাকলেও বাড়ীতে স্বামীর অনুপস্থিতির কারনে ভীতসন্ত্রস্থ হয়ে কুলসুম তাদের আগুন সরবরাহ করে। এসময় বাড়িতে লাঞ্চনার স্বীকার কুলসুমকে একা পেয়ে সিগারেট জ্বালানোর ফাঁকে সন্ত্রাসীরা একে অপরকে চোখের ইশারায় কুলসুমকে সম্ভ্রম লুন্ঠনের সিদ্ধান্ত নিয়ে তাৎক্ষনিক একজন ভিকটিমকে জড়িয়ে ধরে।

এসময় ভিকটিম সন্ত্রাসীদের বাধা প্রদান করলে পাশেথাকা অপর দুই উপজাতি সন্ত্রাসী ভিকটিমের কোলে থাকা দুই বছরের শিশু সন্তানকে জোরপুর্বক ছিনিয়ে নিয়ে কুলসুমের গলায় ছুরি ধরে জবাই করার হুমকি দেয়। এতে ভিকটিম ভিত না হয়ে সন্তানকে রক্ষার জন্য জীবনের ঝুকি নিয়ে তার শিশুকে নিজ বুকে ছিনিয়ে আনার জন্য ধস্তাধস্তি করে। এক পর্যায়ে উপজাতি সন্ত্রাসীরা মনস্কামনায় ব্যার্থ হয়ে ভিকটিম কুলসুমকে দা দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্যে কোপ দিলে ভিকটিম সরে যায়। কোপটি সন্ত্রাসীদের লক্ষভ্রষ্ট হয়ে দা’র পিঠের আঘাত লাগে কুলসুমের কপালে। আঘাত পেয়ে চিৎকার শুরু করে ভিকটিম কুলসুম।

কুলসুমের চিৎকার শুনে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসলে উপজাতি সন্ত্রাসীরা ভয়ে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে স্থানীয় লোকজন তাকে এবং তার শিশু সন্তানকে উদ্ধার করে গুইমারা বিজিবি হাসপাতালে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন। চিকিৎসা শেষে কুলসুমকে বাড়িতে নিয়ে যায় তার স্বামী।

এই ঘটনায় স্থানীয় বাঙ্গালীদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে, কি বা কেন এধরনের ঘটনা ঘটেছে বিষয়টি সকল স্থানীয়বাসীদের মাঝে উদ্বেগ, উৎকন্ঠা ও শংকার সৃষ্টি করছে বলে জানা যায়।

এসময় ভিকটিমের উপর ধর্ষণ চেষ্টা ও শিশু ছিনিয়ে নেওয়া এবং সন্তানকে রক্ষা করতে গিয়ে উপজাতি সন্ত্রাসীদের দায়ের কোপে কুলসুম বেগম আহত হওয়ার ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় সূত্রে জানা যায় ঘটনার স্বীকার বাঙ্গালী মহিলার স্বামী ঘটনাকালীন সময়ে বাড়ীতে উপস্থিত ছিলনা। ঘটনায় জড়িত ০৩ উপজাতি সন্ত্রাসী ব্যক্তি।

ঘটনার বিষয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান প্রতিবেদককে বলেন, পাতাছড়া এলাকায় বাঙ্গালী নারীর সম্ভ্রম হানীর চেষ্টা ও তার সন্তানকে ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনার বিষয় সম্পর্কে জানতে পেরেছেন, সংঘঠিত ঘটনায় আগামীকাল তিনি এলাকার স্থানীয় নেতৃবৃন্দ ও সমাজের লোকজনের সাথে বিস্তারিত জানতে ও সমাধানের লক্ষে কথা বলবেন এবং পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

এনিয়ে এখন পর্যন্ত থানায় কোন অভিযোগ বা মামলা হয়নি বলে জানা গেছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

February 2019
M T W T F S S
« Jan    
 123
45678910
11121314151617
18192021222324
25262728  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় প্রথম পাতা

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন