খাগড়াছড়ি, , মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০

আজ বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস

প্রকাশ: ২০২০-০৫-০৩ ২১:৪৯:৪৭ || আপডেট: ২০২০-০৫-০৩ ২১:৪৯:৫০

আলোকিত ডেস্ক: গণতন্ত্র আর গণমাধ্যম একটি আরেকটির পরিপূরক। যেখানে গণমাধ্যম যতবেশি শক্তিশালী সেখানে গণতন্ত্রও ততবেশি শক্তিশালী। পরমত সহিষ্ণুতাই গণতন্ত্রের সবচেয়ে বড় কথা। আলোচনা, মতপ্রকাশ, ঐক্য, সংহতি হলো গণতন্ত্রের গুরুত্বপূর্ণ সিঁড়ি। অন্যের মতের প্রতি শ্রদ্ধাশীলতা গণতন্ত্রের একটি পূর্ব শর্ত। মৌলিক অধিকার হলো মতপ্রকাশের স্বাধীনতা। যে সমাজ বা রাষ্ট্রে মতপ্রকাশের স্বাধীনতা নেই সেই সমাজ কিংবা রাষ্ট্রকে গণতান্ত্রিক বলা যায় না। গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ছাড়া গণতন্ত্র কল্পনাও করা যায় না। পৃথিবীর সব সভ্য সমাজ বা রাষ্ট্রে গণমাধ্যম স্বাধীনভাবে মতপ্রকাশ করতে পারে।

মত প্রকাশের স্বাধীনতায় কোন সীমাবদ্ধতা না থাকার সুপারিশেই ১৯৯১ সালে ইউনেস্কোর ২৬তম সাধারণ অধিবেশনে জাতিসঙ্ঘ ১৯৯৩ সাল থেকে ৩ মে, ওয়ার্ল্ড প্রেস ফ্রিডম ডে বা বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নেয়।

বিচারপতি সাহাবুদ্দীনের অস্থায়ী সরকারের এক অভূতপূর্ব সাফল্য হল নব্বইয়ে স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন থেকে পত্রিকা বন্ধ করে দেওয়ার কালাকানুন বাতিল করা। সেই সূত্র ধরে বাংলাদেশেও আজ পালিত হচ্ছে বিশ্ব মুক্ত গনমাধ্যম দিবস।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে সকল গণমাধ্যম উদ্যোক্তা, গবেষক ও কর্মীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, দিবসটি বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত তাৎপর্যময়। বাংলাদেশে এ মুহুর্তে গণমাধ্যমের স্বাধীন বিকাশ ও স্মরণকালের সবচেয়ে বেশি প্রসার ঘটছে।

৩ মে বাংলাদেশে গণমাধ্যম দিবসের রীতি সম্পর্কে তিনি বলেন, বছরে আড়াই হাজারেরও বেশি পত্র-পত্রিকা প্রকাশনার পাশাপাশি রয়েছে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল, এফএম রেডিও এবং কণ্ঠহীনদের কণ্ঠস্বর বলে পরিচিত কমিউনিটি রেডিও। অনলাইন সংবাদ পোর্টালের সংখ্যাও হাজার ছাড়িয়েছে।

হাসানুল হক ইনু বলেন, গণমাধ্যমের এই অভূতপূর্ব বিকাশকে এগিয়ে নেবার দায়িত্ব শুধু সরকারের একার নয়। দেশের গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব, উদ্যোক্তা, গবেষক ও কর্মীবৃন্দ এ বিষয়ে অনেক বড় ভূমিকা রাখতে পারেন। তাদের সুচিন্তিত মতামত গণমাধ্যমের বিকাশকে টেকসই ও প্রাতিষ্ঠানিকীকরণে সরকারের নিরন্তর প্রচেষ্টাকে স্বার্থক করে তুলবে।

বিশ্ব মুক্ত গণমাধ্যম দিবস উপলক্ষে বিএফইউজে ও ডিইউজের যৌথ উদ্যোগে আজ মঙ্গলবার বেলা ১১টায় জাতীয় প্রেস কাবে অবস্থিত সাংবাদিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এতে সাংবাদিক ও পেশাজীবী নেতৃবৃন্দ বক্তৃতা করবেন।

যখন সারা বিশ্বে যখন মুক্ত গণমাধ্যম দিবস পালিত হচ্ছে, তখন বিভিন্ন দেশে গণমাধ্যমের ওপর চাপ ও ভয়ভীতি আমাদের যারপরনাই উদ্বিগ্ন করে। মত প্রকাশের স্বাধীনতা পর্যবেক্ষণ করে এমন কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের জরিপ এবং মূল্যায়নে দেখা যাচ্ছে সারা বিশ্বেই গণমাধ্যমের ঝুঁকি বেড়ে চলেছে। আর যেসব দেশে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সংকুচিত হচ্ছে, তার মধ্যে বাংলাদেশও রয়েছে।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

পূর্বের সংবাদ

May 2020
M T W T F S S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930  

এই সপ্তাহের আলোকিত পাহাড় শেষ পাতা

বিজ্ঞাপন